শুক্রবার , সেপ্টেম্বর ২৪ ২০২১
Home / কবুতরের যত্ন / বর্ষা মৌসুমে কবুতরকে মাসিক কোর্স করানোর নিয়ম
বর্ষা মৌসুমে কবুতরকে মাসিক কোর্স করানোর নিয়ম
বর্ষা মৌসুমে কবুতরকে মাসিক কোর্স করানোর নিয়ম

বর্ষা মৌসুমে কবুতরকে মাসিক কোর্স করানোর নিয়ম

বর্ষাকালীন সময়ে শীতের মতই একটু বেশী খেয়াল রাখতে হবে যেন আপনার কবুতরের খাদ্য পরিমিত তৈল বীজ যুক্ত থাকে। যেমনঃ বাজরা , তিসি, সরিসা, কুসুম বিচি, সূর্যমুখী বিচি ইত্যাদি। খেয়াল রাখতে হবে যেন আপনার খামার শুকনো থাকে, যদিও এই বর্ষায় এটা খুবই কঠিন একটা কাজ, আর সম্ভব হলে কবুতরের খাচায় বা খোপে ছোট এক টুকরা কাপড়, পেপার, বা চট দিতে পারেন।

১ থেকে ৫ তারিখ: হেমিকো পি এইচ ১মিলি ১ লিটার পানিতে দিতে হবে টানা ৩দিন।অথবা ২ টেবিল চামচ শাফি+ ২ টেবিল চামচ ফেবনিল, ১ চামচ মারবেলাস ১ লিটার পানিতে মিক্স করে টানা ৪-৫ দিন সাধারন খাবার পানি হিসাবে পরিবেশন করাবেন অথবা (হোমিও ব্যাপ্তেসিয়া ৩০, ১ সিসি =১ লিটার পানিতে মিক্স করেও ৫ দিন আপনি এই কোর্স করাতে পারবেন। এই কোর্স চলাকালীন সময় কবুতর সবুজ পায়খানা করতে পারে, আর এই অবস্থাই ঔষধ বন্ধ করা যাবে না, এটা ভিতরের জীবাণু বের করতে সাহায্য করে। একটানা করাতে হবে , ধরে খাওয়ানো যাবে না ও অসুস্থ কবুতর কে খাওয়ানো যাবে না, তাতে বমি করতে পারে বা সরাসরি খাওয়ানো যাবে না। বাচ্চা থাকা বাবা-মা কেও খাওয়াতে পারবেন। কারন এ সময় তারা সরাসরি কোন খাবার দেয় না। কর্প মিল্ক খাওয়ায়।)

৬ তারিখ: ইলেকট্রমিন স্যালাইন ১ লিটার পানিতে ১ গ্রাম মিক্স করে দিবেন।

৭ থেকে ১২ তারিখ: ভিটামিন বি কমপ্লেক্স হিসাবে (toxynil, biovit, B com bit) ১ সিসি/গ্রাম= ১ লিটার পানিতে মিক্স করে সাধারন খাবার পানি হিসাবে পরিবেশন করাবেন একটানা ৩ দিন।




১৩ তারিখ: হোমিও Belodona 30, ১ সিসি= ১ লিটার পানিতে মিক্স করে সাধারন খাবার পানি হিসাবে পরিবেশন করাবেন (মাসে ১ বার)। প্যারামক্সি বা এই ধরনের রোগ থেকে মুক্ত থাকতে সাহায্য করবে। যারা মুরগির ভ্যাকসিন দিবার জন্য পারাপারি করেন তাদের জন্য এটি ভাল কাজ করবে।)

১৪ থেকে ১৭ তারিখ: (ক্যালপ্লেক্স ১ গ্রাম= ১ লিটার পানিতে মিক্স করে টানা ৩-৪ দিন সাধারন খাবার পানি হিসাবে পরিবেশন করাবেন । এটি ক্যালসিয়ামের অভাব পূরণ করবে।

১৮ তারিখ: রসুন বাঁটা +মধু+লেবুর রস।(১ লিটার পানিতে ২ চা চামচ রসুন বাটা,২ চা চামচ মধু আর ১ চামচ লেবুর রস মিক্স করে দিলে ভাল। তবে পানি অবশ্য ছেকে নিতে হবে। আর লেবু চিপার সময় গ্লভস বা লেমন ইস্কুইজার ব্যাবহার করবেন। এটা শরীর গরম রাখতে সাহায্য করবে।তবে খেয়াল রাখতে হবে যে এই কোর্স করার আগে ক্রিমির ঔষধ দিয়া আছে কিনা তা জেনে নিবেন। কারন ক্রিমি থাকলে এটা ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে।)

১৯ তারিখ: হোমিও Borax 30 ১ সিসি ১ লিটার পানিতে মিক্স করে সাধারন পানি হিসাবে পরিবেশন করবেন।

২০ তারিখ: অ্যাপেল সিডার ভিনেগার দিন।( এক্ষেত্রে আমিরিকার তৈরি অ্যাপেল সিডার দিয়া উত্তম। তবে অপরিশোধিত টি পেলে ভালো এটা সাল্মনিল্লা প্রতিরোধে সাহায্য করবে। ১ লিটারে ১ সিসি বা তার কম, বেশি প্রয়োগ করবেন না তাতে বিপরিত ফল হতে পারে।)



২২ থেকে ২৬ তারিখ: পর্যন্ত লিভার টনিক দিন।( অধিকাংশ কবুতর লিভার জনিত সমস্যায় বেশি ভুগে থাকে। তাই লিভার এর ব্যাপারে একটু খেয়াল রাখা জরুরি।এক্ষেত্রে হামদারদ এর Cinkara, Karmina ইত্যাদি ব্যাবহার করতে পারেন) ১/২ চামচ ১ লিটার পানিতে দিবেন টানা ৩-৪ দিন।

২৭ থেকে ৩০ তারিখ: রেনা ডব্লিউ এস ১ গ্রাম ১ লিটার পানিতে মিক্স করে নরর্মাল পানির মতো পরিবেশন করবেন।এটি সকল ভিটামিন ও মিনারেলস এর অভাব পূরণ করবে।)
এই ছক যে আপনাকে অনুসরন করতেই হবে এমন কন বাধ্যবাধকতা নাই, এটা আপনার পছন্দ অনুযায়ী পরিবর্কতন করে নিতে পারেন। তবে খেয়াল রাখবেন অসুস্থ কবুতর কে বিশেষ করে যদি পক্স এ আক্রান্ত হয় তাহলে ভিটামিন বি কমপ্লেক্স ছাড়া অন্য কোনও ভিটামিন দিবেন না। তাহলে তাতে ক্ষতি হবার সম্ভাবনা বেশি থাকে।
অবশ্যই খেয়াল রাখবেন যেন আপনার খামারে কোন অবস্থাতেই বৃষ্টির পানি না আসে বা কবুতর না ভিজে। যদি আপনি আপনার খামারের সঠিক যত্ন নেন আশাকরি এই বর্ষা অনায়াসে।নিশ্চিন্তে পার করতে পারবেন।

এই পোস্ট আপনাদের উপকারে আসলে একটি লাইক, কমেন্ট ও শেয়ার করুন। ধন্যবাদ...

Check Also

কবুতরের গ্রীষ্মকালীন খাবারের ছক

কবুতরের গ্রীষ্মকালীন খাবারের ছক

কবুতর পালন করতে গিয়ে আমরা অনেক কাজ করে থাকি আসল কাজ বাদ রেখেই। এই সেক্টরে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *