শুক্রবার , মে ২০ ২০২২
Home / কবুতরের প্রাকৃতিক ঔষধ / কবুতরের প্রাকৃতিক কৃমি কোর্স | ১০০% কার্যকরী | কেনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই
কবুতরের প্রাকৃতিক কৃমি কর্স | ১০০% কার্যকরী | কেনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই
কবুতরের প্রাকৃতিক কৃমি কর্স | ১০০% কার্যকরী | কেনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই

কবুতরের প্রাকৃতিক কৃমি কোর্স | ১০০% কার্যকরী | কেনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই

আসসালামুআলাইকুম কবুতর প্রেমি ভাই, বোন এবং বন্ধুগন। আশা করছি সকলেই মহান আল্লাহর রহমতে ভালো আছেন। কবুতরকে কিভাবে প্রাকৃতিকভাবে কৃমি কোর্স করাবেন? আজকের পোস্টে এই বিষয় নিয়েই আলোচনা করবো।

প্রিয় কবুতর প্রেমি বন্ধুগন! প্রাকৃতিকভাবে কবুতরকে কৃমি কোর্স করালে কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয় না। আমরা অনেকেই কবুতরের কৃমি কোর্স নিয়ে বিভিন্ন সমস্যায় পড়ে থাকি। বাজারে অনেক ধরণের কৃমির ঔষধ রয়েছে। যেগুলো ব্যবহারে একদিকে কিছু সীমাবদ্ধতা রয়েছে আবার অপর দিকে রয়েছে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া।

আমরা অনেকেই আছি এভিনেক্স (Avinex) দিয়ে কবুতরকে কৃমি কোর্স করিয়ে থাকি। কিন্তু এভিনেক্স দিয়ে কৃমি কোর্স করানোর সময় যদি একটু ভুল হয়ে যায় তাহলে কবুতরের বিশাল বড় ধরণের ক্ষতি হয়। তাছাড়া এতে রয়েছে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া।
আজকের আলোচনায় যে উপাদান দিয়ে কৃমি কোর্স করাতে বলবো, তা দিয়ে যদি কবুতরকে কৃমি কোর্স করান তাহলে কবুতরের পেটের ভিতর থেকে পায়খানার সাথে কৃমিসহ কৃমির ডিম পর্যন্ত বের হয়ে যাবে।

প্রাকৃতিকভাবে কৃমি কোর্স করাতে যেসব উপাদান লাগবে সেগুলো হলোঃ
১) নিমপাতা
২) কালোজিরা
প্রথমে নিমপাতা ও সমপরিমাণ কালোজিরা একত্রে মিহি করে বেটে অথবা ব্লেন্ড করে নিতে হবে। এমনভাবে মিহি করতে হবে, মিশ্রনটি যেন একেবারে নরম হয়ে না যায়।




এরপর এগুলো হাতের তালুতে নিয়ে ছোট ছোট বল এর আকার আনতে হবে। এরপর এগুলো ভালো করে রোদে শুকিয়ে নিতে হবে। প্রতিটি বলের আকার হবে ডাবলি/ছোলা সাইজের সমান, যেন কবুতর খেতে পারে।

কবুতরকে খাওয়ানোর নিয়মঃ
প্রতিটি কবুতরকে একটি করে বড়ি টানা তিনদিন খাওয়াতে হবে। সকালে খালি পেটে খাওয়ালে উপকার বেশি পাওয়া যায়। সকল ধরনের কবুতরকে এ বড়ি খাওয়াতে পারবেন। যেমন ধরুন- কবুতর ডিমে রয়েছে অথবা কবুতরের সাথে বাচ্চা রয়েছে সেসব কবুতরকে খাওয়ানো যাবে।

কবুতরকে আরেকভাবে কৃমি কোর্স করানো যায়। আর তাহলো- ১ লিটার পানিতে ৩০-৪০ টি নিমপাতা দিয়ে জাল করতে হবে। পানির রং যখন পরিবর্তন হবে তখন চুলা থেকে নামিয়ে নিতে হব এবং পানি ঠান্ডা হলে কবুতরকে খাওয়াতে হবে। প্রতিটা কবুতরকে ৫ মিলি করে টানা ৩ দিন এ পানি খাওয়াতে হবে। পরবর্তীতে সপ্তাহে ১ দিন নিমপাতার পানি কবুতরকে খেতে দিন। ১০-১২ টি নিমপাতা ১ লিটার পানিতে।
আজকে এ পর্যন্তই। সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। আল্লাহ হাফেজ…

এই পোস্ট আপনাদের উপকারে আসলে একটি লাইক, কমেন্ট ও শেয়ার করুন। ধন্যবাদ...

Check Also

গরমে কবুতরের মহাঔষধ লেবু পানির উপকারিতা ও ব্যবহারের নিয়ম

গরমে কবুতরের মহাঔষধ লেবু পানির উপকারিতা ও ব্যবহারের নিয়ম

আজকে পোস্টে আলোচনা করবো গরমে কবুতরের জন্য লেবু পানির উপকারিতা ও ব্যবহারের নিয়ম সম্পর্ক। প্রিয় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!