Home / কবুতরের রোগ ও চিকিৎসা / কবুতর বমি করলে/ফুড পয়জনিং হলে করণীয় কাজ
কবুতর বমি করলে করণীয় কাজ
কবুতর বমি করলে করণীয় কাজ

কবুতর বমি করলে/ফুড পয়জনিং হলে করণীয় কাজ

কবুতর বমি সাধারণত দুই ধরনের হয়ে থাকে । একটা হল দিনে একবার এবং অপরটি হল একের অধিক। কবুতরের দিনে একবার বমি হলে এতে ভয়ের কিছু নেই বা ঔষধ খাওয়ানোর প্রয়োজন নেই। কারণ এটা কবুতরের খাদ্যে সামান্য সমস্যা হলে করে থাকে।কিন্তু যদি একের অধিকবার হয় তাহলে বুঝতে হবে ফুড পইজনিং হয়েছে । তখন অবশ্যই এর চিকিৎসা করতে হবে। তা না হলে কবুতর প্রথমে খাওয়া দাওয়া বন্ধ করে দেবে এবং বমি করতে থাকবে। এক পর্যায়ে মারা যাবে।

ফুড পয়জনিংয়ের চিকিৎসাঃ
প্রথমেই কবুতরকে আলাদা করতে হবে। সকল খাবার দাবার পরিবেশন বন্ধ করতে হবে এবং বমি বন্ধের ঔষধ দিতে হবে। এক্ষেত্রে আমরা ডমপেরিডন গ্রুপের যে কোন ট্যাবলেট ব্যবহার করতে পারি। একটি ট্যবলেট ৪ খন্ড করে ১ খন্ড খাইয়ে দিতে হবে। এটা পানির সাথে মিশিয়ে খাওয়ানো যায় আবার শুধু মুখে খাওয়ানো যায়।




১ খন্ড খাওয়ানোর পর যদি বমি থেমে যায় তাহলে আর খাওয়ানোর প্রয়োজন নেই। তা না হলে আবার ১ খন্ড খাওয়াতে হবে আধা ঘন্টা পর। আর সাথে সে সকল খাবার দিতে হবে যা সহজে খাওয়া ও হজম করা যায়। যেমনঃ সরিসা। কারণ এই সময় কবুতরের খাওয়ার রুচি থাকে না। আর অবশ্যই বের করতে হবে যে কোন খাবারের বিষক্রিয়ার কারণে এটা হয়েছে।

এটা বুঝার জন্য আপনাকে ডাক্তার হতে হবে না। কারণ বমি দেখলে বুঝতে পারবেন যে কোন খাবারে সমস্যা। তখন সেই খাবারটা ফেলে দিতে হবে অথবা ঠিকমত বিশুদ্ধ বা পরিষ্কার করতে হবে। আর একটা দিক খেয়াল রাখতে হবে যে এক কবুতরের বমি অন্য কবুতর খেয়ে না ফেলে। কারন কবুতরের ক্ষেত্রে এই জিনিস্টা বেশি দেখা যায় যে, একটি কবুতর কোনো খাবার ফেলে দিলে বা বের করে ফেললে অপর কবুতর খেয়ে নেই। তাই এক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে।

আজ এ পর্যন্তই। যদি এই পোস্ট উপকারে আসে তাহলে একটি লাইক, কমেন্ট ও শেয়ার করবেন। ধন্যবাদ….

 

এই পোস্ট আপনাদের উপকারে আসলে একটি লাইক, কমেন্ট ও শেয়ার করুন। ধন্যবাদ...

Check Also

কবুতরের গোটা/পক্স/বসন্ত রোগের সহজ চিকিৎসা

কবুতরের গোটা/পক্স/বসন্ত রোগের সহজ চিকিৎসা

আজকে আমি কবুতরের যে বিষয়টা নিয়ে আলোচনা করব সেটা হল কবুতরের পক্স, বসন্ত বা মশার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *