বৃহস্পতিবার , সেপ্টেম্বর ২৩ ২০২১
Home / কবুতরের যত্ন / কবুতরের ঘর থেকে মশা দূর করার ৬ টি সহজ পদ্ধতি
কবুতরের ঘর থেকে মশা দূর করার ৬ টি সহজ পদ্ধতি
কবুতরের ঘর থেকে মশা দূর করার ৬ টি সহজ পদ্ধতি

কবুতরের ঘর থেকে মশা দূর করার ৬ টি সহজ পদ্ধতি

আসসালামুওয়ালাইকুম কবুতর প্রেমি ভাই, বোন এবং বন্ধুগন! আশা করছি সকলেই মহান আল্লাহর অশেশ রহমতে ভালো আছেন। কবুতরের ঘর থেকে মশা দূর করার কার্যকরী উপায় নিয়ে আজকের পোস্টে আলোচনা করবো। মূল আলোচনায় যাওয়ার পূর্বে আপনাদের একটি বিষয় জানিয়ে দিতে চাই আর তাহলো-

মশার কামড়ে কবুতরের কি কি সমস্যা হয় সে বিষয়টি- মশার কামড়ে কবুতরের শরীরে গুটি বা পক্স ওঠে থাকে। মশার কামড়ে সবচেয়ে ক্ষতি হয় কবুতরের বাচ্চার। অনেক সময় কবুতরের বাচ্চা মারাও যায় এই মশার কামড়ে। এছাড়াও ডিমে থাকা কবুতর ডিমে তা দেওয়া বন্ধ করে দিতে পারে। এজন্য কবুতরকে মশার হাত থেকে রক্ষা করা আমাদের কবুতর প্রেমিদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। বন্ধুগন! চলুন তাহলে জেনে নেই কবুতরের ঘর থেকে মশা তারানোর উপায় সম্পর্কে-



১) নিমের তেলের ব্যবহারঃ
নিমের তেলে মশা তাড়ানোর বিশেষ একটি গুন রয়েছে। নিমের তেল কবুতরের ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। তাই একসাথে দুটি উপকার পেতে ব্যবহার করতে পারেন নিমের তেল। সমপরিমাণ নিমের তেল ও নারিকেল তেল মিশিয়ে বাচ্চা কবুতরের সমস্ত শরীর ও বড় কবুতরের ঠোট ও পায়ে লাগিয়ে দিন। এতে দেখবেন মশা কবুতরের ধারে কাছেও ঘেষবে না। সেই সঙ্গে কবুতরের ত্বকের ইনফেকশন জনিত নানা সমস্যা দূর হবে।



২) পুদিনা পাতার ব্যবহারঃ
ছোট গ্লাসে একটু পানি নিয়ে তাতে ৫-৬ গাছি পুদিনা রেখে দিন আপনার কবুতরের ঘরের ৪ কোণায় ৪ টি। ৩ দিন পরপর পানি বদলে দিবেন। এতে দেখবেন কবুতরের ঘর থেকে মশা পালিয়ে যাবে। শুধু মশা নয় পুদিনার গন্ধে অনেক ধরনের পোকামাকড়ও কবুতরের ঘর থেকে পালিয়ে যাবে।
পুদিনা পাতা অন্যভাবেও ব্যবহার করা যায়। তাহলে- পুদিনা পাতা ছেচে নিয়ে পানিতে ফুটিয়ে নিন। এই পানির ভাপ পুরো ঘরে ছড়িয়ে দিন। এতে দেখবেন কবুতরের ঘর থেকে মশা সঙ্গে সঙ্গে পালিয়ে গেছে।



৩) কর্পোরের ব্যবহারঃ
মশা কর্পোরের গন্ধ একেবারেই সহ্য করতে পারে না। আপনি যেকোনো ফার্মেসিতে গিয়ে কর্পুরের ট্যাবলেট কিনে আনতে পারেন। একটি ৫০ গ্রাম কর্পোরের ট্যাবলেট একটি ছোট বাটিতে রেখে বাটিটি পানি দিয়ে ভর্তি করে দিন। এরপর এটি কবুতরের ঘরের এক কোণায় রেখে দিন। এমন জায়গায় রাখবেন যেনো কবুতর এই পানি খেতে না পারে। এভাবে ব্যবহারে কবুতরের ঘর থেকে তাৎক্ষণিকভাবে মশা দূর হয়ে যাবে। কর্পোর মেশানো পানি দুদিন পরপর পরিবর্তন করে দিবেন। যে পানি পরিবর্তন করে দিবেন সে পানি ফেলে দিবেন না। এই পানি কবুতরের ঘরে ছিটিয়ে দিন এতে কবুতরের ঘর থেকে পিঁপড়া দূর হবে।



৪) রসুনের ব্যবহারঃ
১ লিটার পানিতে ২ চা চামচ রসুনের রস মিশিয়ে কবুতরের শরীরে এবং কবুতরের ঘরে স্প্রে করে দিন। এতে করে যেকোনো ধরনের রক্তচোষারা কবুতরের ধারেকাছেও আসবে না।

৫) কেরোসিন তেল স্প্রেঃ
কেরোসিন তেলের সাথে কয়েক টুকরো কর্পোর মিশিয়ে নিন এবং এগুলো একটি স্প্রে বোতলে ভরে নিয়ে ভালো করে ঝাকিয়ে নিন। এরপর কবুতরের ঘরে স্প্রে করুন। কবুতরের ঘরে এটি বেশি স্প্রে করা যাবে না। এতে কবুতরের ক্ষতি হতে পারে। কেরোসিন তেল কবুতরের ঘরে স্প্রে করার ফলে দেখবেন মশা পালিয়ে গেছে।



৬) লেবু ও লবঙ্গের ব্যবহারঃ
১ টি লেবু ২ খন্ড করে এতে অনেকগুলো লবঙ্গ গেঁথে দিন। লেবুর মধ্যে লবঙ্গের পুরোটা ঢুকাবেন। শুধুমাত্র লবঙ্গের মাথার দিকের অংশ বাহিরে থাকবে। এরপর লেবুর টুকরোগুলো একটি বাটিতে/প্লেটে রেখে কবুতরের ঘরের এক কেণায় রেখে দিন। এতে করে কবুতরের ঘরের সব মশা দূর হয়ে যাবে। মশার হাত থেকে বাঁচাতে সর্বোত্তম পন্থা হলো- কবুতরের খাঁচা পুরোটা মশারী দিয়ে ঢেকে রাখা। সন্ধা থেকে সকাল পর্যন্ত কবুতরের খাঁচা ঢেকে রাখতে হবে।



বিঃদ্রঃ কবুতরের ঘর থেকে মশা তাড়ানের জন্য আমরা অনেকে মশার কয়েল ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু আমরা অনেকেই জানিনা যে, মশার কয়েল কবুতরের জন্য অনেক ক্ষতিকর। তাই কবুতরের ঘরে কয়েল ব্যবহারে সতর্ক হোন।

এই পোস্ট আপনাদের উপকারে আসলে একটি লাইক, কমেন্ট ও শেয়ার করুন। ধন্যবাদ...

Check Also

কবুতরের গ্রীষ্মকালীন খাবারের ছক

কবুতরের গ্রীষ্মকালীন খাবারের ছক

কবুতর পালন করতে গিয়ে আমরা অনেক কাজ করে থাকি আসল কাজ বাদ রেখেই। এই সেক্টরে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *